Letest Update

ফেসবুকের নিজস্ব মুদ্রা লিব্রা নিয়ে সতর্ক প্রতিক্রিয়া বিশ্ব নেতাদের !




ফেসবুক ইনকর্পরেটেড গত মঙ্গলবার থেকে বিশ্বব্যাপী নতুন ক্রিপ্টোকারেন্সি চালুর ঘোষনা দিয়েছে। নতুন এই ক্রিপ্টোকারেন্সির নাম লিব্রা। এ মুদ্রাব্যবস্থায় অর্থ লেনদেন হবে দ্রুত এবং ফেসবুক ব্যবহারের মতই সহজ। বিশ্বব্যাপী ডিজিটাল পেমেন্ট সিস্টেমের বাজার ধরার জন্য ফেসবুক নতুন এই ক্রিপ্টোকারেন্সি বাজারে নিয়ে এসেছে বলে ধারণা করছেন গবেষকরা। তাদের মতে, লিব্রা যতটা উচ্চাকাঙ্ক্ষী হবে ততটাই এর নিরাপত্তা ঝুঁকি বাড়বে। মাস্টারকার্ড, পেপ্যাল সহ সর্বোমোট ২৮ টি অংশীদারকে সাথে নিয়ে নতুন এই মুদ্রা বাজারে উন্মোচন করল ফেসবুক। তবে এখনও কোনো ব্যাংকের সাথে এ ব্যাপারে চুক্তি করতে পারেনি কোম্পানিটি।

লেনদেনকে সহজতর করার জন্য ফেসবুক একটি সাবসিডিয়ারী প্ল্যাটফর্মও তৈরি করেছে যার নাম ক্যালিব্রা। ক্যালিব্রার মাধ্যমে আপনি আপনার লিব্রাগুলোকে জমিয়ে রাখতে পারবেন কিংবা কোথাও ব্যবহারও করতে পারবেন। তাছাড়া ফেসবুকের বার্তা মাধ্যম যেমন হোয়াটস অ্যাপ ও মেসেঞ্জারের সাথেও যুক্ত হবে ক্যালিব্রা। এবং এই পুরো মাধ্যমটি একসাথে ২০২০ সালের শুরুর দিকে বাজারে আসবে বলে জানিয়েছে ফেসবুক। ফেসবুকের নির্বাহী কর্মকর্তা ও অন্যান্য কর্মচারীদের লিব্রা নিয়ে অনেক আশা আকাঙ্ক্ষা রয়েছে বলে জানিয়েছে ফেসবুক। তাদের মতে এটি কেবলমাত্র বিশ্বব্যাপী প্রতিষ্ঠিত কনজিউমারদের জন্য লেনদেন কে সহজতর করবে না এটি বিশ্ববাজারেও অনেক গুরত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। ফেসবুক আরো আশা করছে এর মাধ্যমে তাদের অ্যাপ গুলো থেকে লভ্যাংশ আয়ের পরিমান অনেক বেড়ে যাবে যেমনটা হয়েছে চীনা সোশাল নেটওয়ার্ক সাইট উইচ্যাটের মাধ্যমে।

ইউএস হাউস ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিসেস কমিটির সভাপতি ম্যাক্সিন ওয়াটারস ফেসবুকের নির্বাহী কর্মকর্তাদের আহবান জানান তারা যেন কংগ্রেসের সামনে সাক্ষ্য দেন যে তাদের এই ক্রিপ্টোকারেন্সি নিরাপত্তাজনিত কোনো সমস্যা করবে না। এবং তিনি যতদিন না পর্যন্ত আইন প্রণেতা ও নিয়ন্ত্রকরা এই প্রকল্পের ব্যাপারে সম্মতি দিচ্ছে ততদিন ফেসবুককে এর কাজ বন্ধ রাখার আহবান করেন। এছাড়াও বিশ্বব্যাপী অন্যান্য বড় বড় দেশের কর্তা ব্যাক্তিরা এই প্রকল্পের ব্যাপারে দ্রুত সমালোচনা মূলক বিবৃতি প্রদান করেন । এ বিষয়ে ফ্রান্সের অর্থমন্ত্রী বলেন জি৭ দেশগুলোর কেন্দ্রীয় ব্যাংকগুলোকে এই ব্যাপারে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে এবং দ্রুত এই প্রকল্প সম্পর্কে একটি প্রতিবেদন তৈরি করে দেশগুলোর রাষ্ট্রপ্রধানের সাথে আলোচনা করার আদেশ দেয়া হয়েছে। ফেসবুক জানিয়েছে এই বিষয়ে আইন প্রণেতাদের যেকোনো প্রশ্নের উত্তর দিতে তারা সবসময় তৈরি।

এর আগেও ফেসবুক নিরাপত্তাজনিত কারনে অনেকবার প্রশ্নবিদ্ধ হয়েছে। ব্যবহারকারীদের তথ্য চুরির দায়েও অভিযুক্ত হয়েছে। এবং এসকল কারনেই ফেসবুকের নতুন এই প্রকল্প নিয়ে এত কথা হচ্ছে বলে ধারণা করছেন বিশ্লেষকরা।


ফেসবুকের প্রকল্পটির প্রধান ডেভিড মার্কাস জানান লিব্রা নামটি মূলত রোমান ওজন পরিমাপ থেকে এসেছে। তিনি আরও বলেন স্বাধীনতা, ন্যায়বিচার এবং অর্থ ঠিক এই ব্যপারগুলো নিয়েই কাজ করছি আমরা। বিশ্বব্যাপী নীতি নির্ধারকদের এই প্রকল্পের ব্যপারে কোনো সমস্যা থাকবেনা বলেও আশাবাদ ব্যাক্ত করেন তিনি।

No comments